Saturday, December 9, 2023

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে অবশ্যই সংবিধান ওআইন মেনে চলতে হবে: হাইকোর্ট

হাইকোর্ট মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর নির্যাতনের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দেশের সংবিধান ও আইন মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছে।

হাইকোর্ট মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর নির্যাতনের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দেশের সংবিধান ও আইন মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছে।

আদালত জানায়, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদেরকে শারীরিক, মানসিক এমনকি যৌনসহ বিভিন্ন ধরণের নির্যাতন করা হয় বলে আদালত জানিয়েছে। এ জাতীয় বিষয়ে আদালতের নির্দেশনা রয়েছে। আদালত পূর্ববর্তী নির্দেশাবলী কার্যকর করার নির্দেশ দেয় যা শিক্ষার্থীদের উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনকে নিষিদ্ধ করে। বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি শাহেদ নুরুদ্দিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে নির্দেশনা বাস্তবায়ন ও কমিটি গঠনের আহ্বান জানিয়েছে।

চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসায় শিক্ষক কর্তৃক আট বছরের এক শিশু নির্যাতনের বিষয়ে গৃহীত পদক্ষেপের কথা শুনে তারা বিষয়টিকে আমলে নেন এবং পর্যবেক্ষণ করেন। সন্তানের নিরবচ্ছিন্ন পড়াশোনা এবং ভুক্তভোগী এবং তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় যেন না ভোগেন, তা নিশ্চিত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

 ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ নির্যাতনের ঘটনার বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়ার বিষয়ে জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) এর পৃথক দুটি প্রতিবেদন আদালতে জমা দেন।

ডিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ছেলেটিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সা করা হচ্ছে এবং এএসপির রিপোর্টে বলা হয়েছে মাদ্রাসা শিক্ষক ইয়াহিয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ তাকে বহিষ্কার করেছে। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল্লাহ ১১ মার্চ এই ঘটনার বিষয়ে গণমাধ্যম প্রতিবেদন জমা দিয়েছেন, এবং হাইকোর্টের পদক্ষেপের বিষয়ে বিশদ জানতে চান। ৯ ই মার্চ ঘটনাটি ঘটে, যখন ছেলের মা তার জন্মদিনে তাকে দেখতে মাদ্রাসায় যান।

ছেলেটির মা চলে যাবার সময় ছেলেটি তার পিছনে ছুটলে মাদ্রাসা শিক্ষক ইয়াহইয়া লোকটি শিশুটিকে ঘাড়ে ধরে একটি ঘরে নিয়ে গিয়ে তাকে নির্দয়ভাবে মারধর করে।

এই ঘটনার একটি ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হলে জনমনে চরম ক্ষোভের জন্ম দেয়। ভুক্তভোগী মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর বাবা-মা পরে তাদের ছেলের উপর অত্যাচার করার কারণে মাদ্রাসা শিক্ষকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন।#

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest article